সুস্বাস্থ্যের জন্য চাই সঠিক নিয়মিত ও পরিমিত খাবার।। "Maintaining your skin at its optimal health and apearance will greatly contribute to your quality of life". নিরাপদ পুষ্টিকর খাবার সুস্থ জীবনের অঙ্গীকার।।
Post

গর্ভাবস্থায় দূরে থাকুন এসব খাবার থেকে।। জেনে রাখা ভালো।।

নারীর স্বাস্থ্য

নারীদের জন্য একটি বিশেষ সময় প্রেগন্যান্সি বা গর্ভাবস্থা। এ সময় একজন নারী নতুন নতুন অভিজ্ঞতার সম্মুখীন হয়, শেখেন অনেক কিছু।

এক নতুন জীবন জন্ম দিতে গিয়ে মানতে হয় অনেক কিছু। আর গর্ভের সন্তানকে ভালো রাখতে কিছু বিষয় মানা জরুরি। খাবারও খেতে হবে অনেক ভাবনা-চিন্তা করে।

আর এ সময় যেসব খাবার থেকে অবশ্যই দূরে থাকতে হবে সেগুলো হলো-

গর্ভাবস্থায় কাঁচা বা হাফ সিদ্ধ ডিম খাওয়া যাবে না।

পোড়া মাংস বা রোস্ট খাওয়া থেকেও দূরে থাকতে হবে গর্ভবতীকে। কারণ এসবের মাধ্যমে টকসোপ্লাজমা নামক একপ্রকার ব্যাকটেরিয়া শরীরের ক্ষতি করতে পারে।

গর্ভাবস্থায় সমুদ্রের মাছ খাওয়া ভালো। কারণ এতে ওমেগা-৩ নামক ভিটামিন থাকে। তবে সেটিও খেতে হবে পরিমিত পরিমাণে।

গর্ভাবস্থায় সবুজ সালাদ স্বাস্থ্যের পক্ষে খুবই উপকারী। তবে সেটি টাটকা হতে হবে। কখনই অনেক আগের কেটে রাখা সালাদ খাওয়া যাবে না। অনেক আগের কাটা সালাদে লিস্টেরিয়া প্যারাসাইট থাকে।

গর্ভাবস্থায় সব ধরনের নেশাকে না বলতে হবে। ধূমপান বা অ্যালকোহল কোনোটাই এ সময় নেয়া উচিত নয়।

চা বা কফি খাওয়ার প্রবণতা কমবেশি সবারই থাকে। তবে এই প্রবণতাটা কমাতে হবে গভার্বস্থায়। কারণ অতিরিক্ত ক্যাফেইন শরীরে গেলে মিসক্যারেজের সম্ভাবনা বা কম ওজনের শিশু হওয়ার সম্ভাবনা বাড়িয়ে তোলে।

ফল স্বাস্থ্যের জন্য ভালো। তবে গর্ভাবস্থায় কলা ও পেঁপে খাওয়া উচিত নয়। কারণ কলা বা পেঁপেতে যে ফাইবার থাকে তা দেহের তাপ বৃদ্ধি করে।

এ ছাড়া গর্ভাবস্থায় দূরে রাখতে হবে অতিরিক্ত ঠাণ্ডা পানি বা এনার্জি ড্রিংক। কারণ ঠাণ্ডা পানি এনার্জি ড্রিংক শরীরের জন্য ক্ষতিকারক।

মোঃ আব্দুর রহমান ফাহাদ।।

জুনিয়র মেডিসিন কনসাালটেন্ট।। 

12 comments

author
author

leave a comment