সুস্বাস্থ্যের জন্য চাই সঠিক নিয়মিত ও পরিমিত খাবার।। "Maintaining your skin at its optimal health and apearance will greatly contribute to your quality of life". নিরাপদ পুষ্টিকর খাবার সুস্থ জীবনের অঙ্গীকার।।
Post

গর্ভকালীন সময়ে রক্তশূন্যতা এড়াতে যা যা করনীয়।।

স্ত্রী ও প্রসূতি

গর্ভাবস্থায় মায়েদের নানা রকম স্বাস্থ্যজনিত সমস্যা দেখা দেয়। তার মধ্যে অন্যতম একটি শারীরিক অসুস্থতা হলো রক্তশূন্যতা বা রক্তাল্পতা যাকে চিকিৎসা বিজ্ঞানের ভাষায় অ্যানিমিয়া বলা হয়। রক্তে রক্তকণিকার স্বল্পতা অর্থাৎ অক্সিজেনবাহী হিমোগ্লোবিনের অভাব হলে অ্যানিমিয়া দেখা দেয়। এই অভাব মায়ের শরীরের পক্ষেও যেমন ক্ষতিকর তেমনই গর্ভে থাকা শিশুটির জন্যও ক্ষতিকর। তাই গর্ভাবস্থায় এই রোগটি থেকে সাবধান থাকতে হবে।

শারীরিক কিছু লক্ষণ দেখা দিলে বুঝতে হবে রক্তস্বল্পতা দেখা দিচ্ছে। যেমন-অল্পতেই হাঁপিয়ে ওঠার সঙ্গে দ্রুতগতির হৃদস্পন্দন এবং রক্তচাপ কমে যাওয়া, চেহারা নীলাভ হয়ে যাওয়া (বিশেষত নখ নীল বা সাদা হয়ে যাওয়া), কথা বলার সময় এক নিঃশ্বাসে কথা শেষ করতে না পারা, শরীর ঝিমঝিম করা ইত্যাদি দেখা যায়।

এই রক্তস্বল্পতা এড়ানোর জন্য গর্ভধারণের প্রথম থেকেই যথেষ্ট লৌহসমৃদ্ধ খাবার যেমন-কচুশাক, কাঁচা কলা, পেয়ারা, শিম, মটরডাল, বাঁধাকপি, কলিজা, গোশত, খোলসহ মাছ (চিংড়ি মাছ) প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় রাখতে হবে।

চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী তিন মাস পর থেকে নিয়মিত আয়রন ট্যাবলেট সেবন করতে হবে। গর্ভকালীন সময়ে রক্তস্বল্পতা কম-বেশি সবার মধ্যে দেখা যায় তাই গর্ভকালীন কয়েকবার রক্তে হিমোগ্লোবিনের মাত্রা দেখতে হবে। অনেক সময় রক্তশূন্যতা তীব্র হলে আয়রন ইনজেকশন অথবা রক্ত পরিসঞ্চালনও করতে হতে পারে।

মোঃ আব্দুর রহমান ফাহাদ।।

 

জুনিয়র মেডিসিন কনসালটেন্ট।।

12 comments

leave a comment